আজ | মঙ্গলবার, ৪ আগস্ট ২০২০
Search

বৃষ্টি থাকবে আরো তিন-চারদিন

চাহিদা নিউজ ডেস্ক | ৯:১৩ অপরাহ্ন, ১৮ জুন, ২০২০

chahida-news-1592493182.JPG
বৃহস্পতিবার দিনভর বৃষ্টিতে চট্টগ্রাম নগরীর জলাবদ্ধতা। ছবিটি নগরীর বায়েজিত বোস্তামি সড়কের

মৌসুমি বায়ুর প্রভাবে দেশের বিভিন্ন স্থানে বৃষ্টি হচ্ছে। আগামী ৩ থেকে ৪ দিন বৃষ্টিপাত অব্যাহত থাকতে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদফতর। এ অবস্থায় সমুদ্র বন্দরগুলোতে ৩ নম্বর সতর্কতা সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে। এদিকে, ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় কয়েক সেকেন্ডের টর্নেডোতে লণ্ডভণ্ড হয়ে গেছে বেশ কয়েকটি বাড়িঘর।

আষাঢ়ের শুরুর দিনটা কড়া রোদে পুড়লেও পরের দিন থেকেই অঝোরে ঝরছে বর্ষার আকাশ। গত ৩ দিন ধরে গুড়ি গুড়ি বৃষ্টি হলেও বুধবার রাত থেকে সকাল পর্যন্ত রাজধানীতে মুষলধারে বৃষ্টি। বৃহস্পতিবার (১৮ জুন) সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত হালকা বৃষ্টিতে বিপাকে পড়েন কর্মজীবীরা।

আবহাওয়াবিদ আরিফ হোসেন বলেন, মৌসুমি বায়ুর প্রভাবেই বৃষ্টিপাত হচ্ছে। আগামী তিন থেকে চার দিন বৃষ্টিপাত হবে এবং এরপর স্বাভাবিক হয়ে এ মাসের শেষের দিকে আবার বৃষ্টিপাত হবে। এছাড়া বর্তমান পরিস্থিতিতে সমুদ্র বন্দরগুলোকে ৩ নম্বর ও অভ্যন্তরীণ নদী বন্দরগুলোকে ১ নম্বর সতর্ক সঙ্কেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে।

বুধবার রাত থেকে টানা বর্ষণ আর পাহাড়ি ঢলে সুনামগঞ্জের সুরমা নদীর পানি ৩০ সেন্টিমিটার বেড়েছে। নদীর ষোলঘর পয়েন্টে ৬ দশমিক ৮৫ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এছাড়া ২৪ ঘণ্টায় ৮৫ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করেছে স্থানীয় পানি উন্নয়ন বোর্ড। এছাড়া মৌলভীবাজারেও থেমে থেমে বৃষ্টিপাত হলেও তাপমাত্রা খুব একটা পরিবর্তন না হওয়ায় গরম কমেনি। ভারি বৃষ্টি আর ঝড়ো হাওয়া বইছে কক্সবাজারেও। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশের সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে ২৫৩ মিলিমিটার।

এছাড়া গত চারদিন ধরে বৃষ্টিপাত অব্যাহত আছে মোংলা সমুদ্র বন্দরে। বৈরি আবহাওয়ায় বন্দরে অবস্থানরত জাহাজ থেকে পণ্য খালাস ব্যহত হচ্ছে। ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদরের বাসুদেব ইউনিয়নের মহিউদ্দিন নগর গ্রামে বৃহস্পতিবার সকালে কয়েক সেকেন্ড স্থানীয় টর্নেডোর আঘাতে এলাকায় অন্তত ১৫টি বাড়িঘর মুহূর্তেই লণ্ডভণ্ড হয়ে যায়। তবে কোন হতাহতের ঘটনা ঘটেনি।

  

আপনার মন্তব্য লিখুন